সৌরজগতের কক্ষপথে ক্রমাগত আবর্তন করে আমাদের পৃথিবী। ফলে দিন-রাত্রি সংঘঠিত হয়। ঘড়ির কাঁটায় ২৪ ঘণ্টা সময় ধরে ১২ ঘণ্টা করে দু’টি ভাগ করে আমরা এম ও পিএম লিখি। দিন-রাত- কিংবা সকাল-দুপুর নির্ধারণে যেটা আমাদের সাহায্য করে।

এখন জেনে নেওয়া যাক এই এম-পিএম বলতে আমরা কি বুঝি।

সূর্য যখন আমাদের মাথার ওপর অবস্থান করে তখন আমরা উত্তর থেকে দক্ষিণে একটি কাল্পনিক রেখা টানতে পারি। এই রেখাকে আমরা বলি মধ্যাহ্নকালীন (meridian)। যখন সূর্য এই রেখার পূর্ব দিকে থাকে তখন আমরা সে সময়টাকে প্রাতঃকালীন সময় বলি।

সূর্য এই মধ্যাহ্নকালীন সময় অতিক্রম করলে তখন বলা হয় অপরাহ্ন। মধ্যাহ্নকে ল্যাটিন ভাষায় বলা হয় মেরিডিস। ইংরেজি শব্দ মেরিডিয়ান এসেছে এই মেরিডিস থেকে। তাই এ.এম (am) বলতে বোঝায় পূর্ব-মধ্যাহ্ন (ante-meridian)। আর অপরাহ্ন বোঝাতে উত্তর-মধ্যাহ্ন (post-meridian) লেখা হয়।

দুপুর ১২টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত সময় বোঝাতে আমরা সংক্ষেপে পি.এম (pm) এবং রাত ১২টার পর থেকে দুপুর ১২টার আগ পর্যন্ত সময় নির্দেশে সংক্ষেপে এ.এম (am) ব্যবহার করি।