এএইচ জুয়েল, কেশবপুর (যশোর) থেকে ফিরেঃ কেশবপুরের সাগরদাড়ি গ্রামে চাচার বিরুদ্ধে ভাইপোর প্রাপ্ত সম্পত্তি ফাঁকি দেওয়ার পায়তারার অভিযোগ উঠেছে । আপন ছোট ভাইয়ের অংশ বুঝে না দিয়ে বড় ভাই পিতার সমস্ত সম্পত্তি ভোগ দখলে রেখে উল্টো ছোট ভাইয়ের ছেলেকে বিভিন্ন ভাবে হয়রানি করে আসছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ঐ এলাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে ।

সূত্রে জানাযায়, কেশবপুর উপজেলার সাগরদাড়ি গ্রামের মৃত মোঃ ঈমান গাজী পরলোক গমনের আগে তার দুই ছেলে এক মেয়ের মধ্যে ছোট ছেলে মতিয়ার গাজী ও মেয়ে আছিয়া বেগম পরলোক গমন করেন। ছোট ছেলে মতিয়ার গ্রাজী মৃত্যুকালে এক ছেলে মশিয়ার রহমান ও এক মেয়ে রেশমা বেগমকে রেখে যান। তারা তাদের মামার বাড়িতে মানবেতর জীবন যাপন করছে । সেই থেকেই ঈমান গাজীর বড় ছেলে কাশেম তার পিতার সমস্ত সম্পত্তি একাই ভোগদখল করে আসছিলো। দুই বছর আগে ঈমান গাজী হার্ড স্ট্রোকে মৃত্যুবরন করেন। মৃত্যু ঈমান গাজীর ছোট ছেলে মৃত্যু মতিয়ার গাজীর ছেলে মশিয়ার তার বড়চাচার নিকট পিতার সম্পত্তি বুঝে নিতে চাইলে তাকে সম্পত্তি বুঝে না দিয়ে বিভিন্ন ভাবে হয়রানি করে আসছে এমনকি জীবন নাশের হুমকি দিচ্ছে বলে জানান ভুক্তভোগী মশিয়ার গাজী। সাগরদাড়ি মৌজায় এসএ ৩১৬ চলতি ১৯৩ দাগে বসতবাড়ীর ৭ শতক জমি নিয়ে চলছে এই বিরোধ। এদিকে আইন ও শালীস উপেক্ষা করে চাচা কাশেম গাজী তার বসত ভিটার প্রাপ্ত জমি বুঝে না দিয়ে বিভিন্ন তালবাহানা করে আসছে।

সরেজমিন গেলে চাচা কাশেম জানান, আমি কারো জমি ফাঁকি দেয়নি। আমি কারো সম্পত্তির উপর জোরপূর্বক দখল করিনি বরং আমার জমি ভোগদখলে আছে। এব্যাপারে এতিম অসহায় মশিয়ার তার প্রাপ্য জমি বুঝে পেতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছে।